শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

বিশেষ সম্পাদকীয় ।। কমলকুঁড়ি পত্রিকা পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ



দেখতে দেখতে চারটি বছর পার হয়ে গেল কমলকুঁড়ি পত্রিকা। আজ কমলকুঁড়ি পত্রিকার জন্মদিন। ৪র্থ বর্ষ শেষে ৫ম বর্ষে পদার্পণ করছে। এই মাহেন্দ্রক্ষণে কমলকুঁড়ি পরিবারের পক্ষ থেকে সর্বস্তরের জনগণকে জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন। এ ৪ বছরে জনগণের খোরাক চাহিদা কতটুকু বাস্তবায়ন করছে তা একমাত্র পাঠক মহলই অনুধাপন করতে পারবেন। তৃণমূল সাংবাদিকতার অঙ্গীকার নিয়ে পত্রিকাটি ২০১১ সালে যাত্রা শুরু করে। যাত্রার পর থেকে অনেক কষ্ট, দু:খ, বেদনা ব্যর্থতা গ্লানি, তিরস্কার, বাধা নিয়ে পথ চলছে। কিন্তু পত্রিকার গতি ও প্রগতিশীল চিন্তাভাবনা নিয়ে কখনো নেমে থাকেনি। পথ চলছে অবিরত, অনেকের উৎসাহ ও সাহসিকতা ও জনগণের ভালোবাসায় আজ ৪র্থ বর্ষ শেষ করে ৫ম বর্ষে পদার্পণ করলো।
গণমাধ্যম গণমানুষের সুখ-দুঃখ, ব্যথা-বেদনা, আশা-প্রত্যাশা, হাসি-কান্না, প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি, সাফল্য-ব্যর্থতার কথা তুলে ধরে। প্রতিটি গণমাধ্যমের কর্মী জানেন গণমাধ্যমের সত্য প্রকাশ ছাড়া কোনো বিকল্প থাকে না। সে কারণেই সংবাদকর্মী বা সাংবাদিকদের সত্য সৈনিক হিসেবে অভিহিত করা হয়। সত্যের সঙ্গে অবিচল থেকে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের গণমাধ্যম সমাজের দর্পণ, সামাজিক চিত্রের প্রতিফলন। সংবাদমাধ্যম সমাজের চোখ হিসেবে কাজ করে। যাকে বলা যায় সমাজচক্ষু। মানুষ যেমন তার চোখ দিয়ে অবিরত দেখে সে কোথায় যাচ্ছে, কোন দিকে অগ্রসর হচ্ছে, কোথায় বিপদের আশঙ্কা, কোথায় সাফল্যের চাবিকাঠি। ঠিক তেমনি গণমাধ্যম সমাজকে পথনির্দেশনা দেয় সমাজ কোন দিকে যাচ্ছে, সংঙ্কট ও সম্ভাবনা কোথায় নিহিত আছে। উন্নয়নশীল প্রান্তিক একটি উপজেলা শহর থেকে নিয়মিত পত্রিকা প্রকাশ যে কতটুকু কষ্টধায়ক কাজ তা ভোক্তভোগী ছাড়া আর কেউ সহজে অনুধাবন করতে পারেন না। তবুও কমলকুঁড়ি শক্ত হাতে হাল ধরেছে। এ হাল কখনো পিছবা হবে না। যদি সর্বমহলের ভালোবাসা থাকে।
পরিশেষে কমলকুঁড়ি পত্রিকার ৪র্থ বর্ষ পূর্তি ও ৫ম বর্ষ পদার্পণে সুপ্রিয় পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা, সংবাদদাতা, শুভানুধ্যায়ীসহ বিশেষ করে প্রবাসের শুভাকাংখীগণ সকলকে জানাই শুভেচ্ছা।  পত্রিকাটি যেন সকল বেড়াজাল থেকে বের হয়ে স্বপ্নের ডানা মেলে স্বাধীন ভাবে মত প্রকাশে উজ্জ্বীবিত হয় এই প্রত্যাশা রাখি।