শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

রাজনগর উপজেলা পরিবর্তন না করতে ৮ হাজার মানুষের প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ



হোসাইন আহমদ, মৌলভীবাজারঃ

মৌলভীবাজার জেলায় সম্ভাব্য নতুন থানায় যুক্ত হতে নারাজ রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের সর্বস্থরের বাসীন্দা। এর প্রতিবাদে গত বুধবার দিনভর প্রচন্ড বৃষ্টি উপেক্ষা করে এলাকার ছাত্র-শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, রাজনীতিবীদ, বৃদ্ধ, যুবক ও কৃষকসহ ৮ হাজার লোক ৩ ঘন্টা অবিরাম বৃষ্টি অপেক্ষা করে প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধ করে। এ বিষয়ে গত ১৮ আগষ্ট ৩ হাজারেরও বেশি স্বাক্ষর নিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছেন কামারচাকের সর্বস্থরের মানুষ। এছাড়া ইউনিয়ন রক্ষা সংগ্রাম কমিটি নিয়মিত মিছিল-সমাবেশ ও প্রতিবাদ সভা করছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ৭টি উপজেলা নিয়ে গঠিত মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর, কুলাউড়া ও কমলগঞ্জের ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন একটি থানা বা উপজেলা গঠন করতে মšী¿পরিষদ বিভাগ ২৪/১০/২০১০ ই্ং তারিখের মপবি/নিকার/১(৩)/২০০৪/১৮৫(২৫০) স্মারকে নির্দেশনা দেয়। এ প্রেক্ষিতে জেলার আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় কুলাউড়া উপজেলার শরিফপুর, টিলাগাঁও ও হাজিপুর ইউনিয়ন, কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার ও সমশেরনগর ইউনিয়ন এবং রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়ন নিয়ে আইন শৃঙ্খলা উন্নয়নের লক্ষ্যে নতুন উপজেলা গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রতিবাদে রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নবাসী ২০১১ সালে ‘কামারচাক ইউনিয়ন জনস্বার্থ রক্ষা সংগ্রাম পরিষদে’র ব্যনারে হরতাল অবরোধ পালন করে। এ আন্দোলনে চাপা পড়ে নতুন উপজেলা বা থানা গঠনের ফাইল। 11229766_735137576609070_3935037160793782777_nকিন্তু নতুন করে মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার কার্যালয় এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ শুরু করলে কামারচাক ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ আবারো আন্দোলনের ডাক দেন। ‘কামারচাক ইউনিয়ন জনস্বার্থ রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ’ পূর্ণগঠন করে ইউপি চেয়ারম্যান নজমুল হক সেলিমকে এর আহ্বায়ক নির্বাচিত করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে সংগ্রাম পরিষদের ডাকে কামারচাক প্রতিবাদ সভা পালিত হয়েছে। প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, কামারচাক ইউনিয়ন রাজনগর উপজেলা থেকে আলাদা করতে দেয়া হবে না আমরা শমসেরনগর যাব না। প্রয়োজনে জীবন দিবো তবুও নতুন উপজেলায় যাবো না। আহ্বায়ক নজমুল হক সেলিম বলেন, রাজনগর উপজেলা ও থানার সঙ্গে আমাদের দূরত্ব ৩-৪ কিলোমিটার। কিন্তু নতুন থানা বা উপজেলার সঙ্গে যুক্ত হলে আমাদের দূরত্ব হবে ১৫-১৬ কিলোমিটার। ফলে দূরত্বের কারণে এ ইউনিয়নের আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটবে। আমরা জীবনের মায়া করি না, নতুন উপজেলায় যুক্ত হতে চাইনা। প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন, রাজনগর উপজেলার সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান মাওঃ আহমদ বেলাল, তারাপাশা বণিক সমিতির সভাপতি রশরত আলী, ৬ নং টেংরা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান টিপু খান, ১ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ইছহাক আলী, আতাউর রহমান, শাহেদ আহমদ, নাজিম উদ্দিন, মশাহিদ উদ্দিন, অভিনাথ চন্দ্র নাথ, শফিক আহমদ, ২নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুল মতিন, মাষ্টার আব্দুল ওয়াহিদ, জসিম উদ্দিন প্রমুখ। এব্যাপারে রাজনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইনুর আক্তার পান্না বলেন, বিষয়টি নিয়ে কামারচাক ইউপি চেয়ারম্যান পরিষদের গত সভায় আলোচনা করেছেন। উপজেলার সকল চেয়ারম্যান ও অন্যান্যরা রাজনগরের সঙ্গে কামারচাক ইউপিকে রাখার ব্যাপারে মত দিয়েছেন। সেই রেজুলেশন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পাঠিয়েছি।