শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বড়লেখায় স্কুলশিক্ষিকা হত্যার প্রধান আসামী গ্রেফতার, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে হত্যা : আদালতে স্বীকারোক্তি



unnamed (4)বড়লেখা প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের বড়লেখার নিউ সমনবাগ চা বাগানের ১৪ নম্বর ব্র্যাক প্রি-প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষিকা মিনতি মুন্ডা খুনের ঘটনার প্রধান আসামী আবু রিকমনকে (১৮) ঘটনার একদিন পরই গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গত মঙ্গলবার বিকেলে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ছুরি দিয়ে গলায় পোঁচ মেরে ওই শিক্ষিকাকে হত্যা করে রিকমন।

সূত্র জানায়, বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ রিকমনকে বুধবার (১৭ জুন) সকালে জুড়ী উপজেলার ধামাই চা বাগানের নলডরি এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। বুধবার বিকেলে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গাজী দেলোয়ার হোসেনের আদালতে রিকমন হত্যার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় এ জবানবন্দী দেয়। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেওয়ার পর তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

সূত্র জানায়, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে মিনতি মুন্ডাকে খুন করেছে বলে আদালতে স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে ঘাতক রিকমন। রিকমনের বাম হাতে ঝলসানো অবস্থায় নিহত মিনতির নাম লেখা থাকতে দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুন উপজেলার দক্ষিণভাগ ইউপি’র নিউ সমনবাগ চা বাগানের ১৪ নম্বর ব্র্যাক প্রি-প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষিকা মিনতি মুন্ডাকে গলায় ছুরি পুঁচিয়ে খুন করে রিকমন। মিনতি মুন্ডা বাগানের টিলার শ্রী প্রসাদ মুন্ডার মেয়ে ও রিকমন একই বাগানের রামজনম রিকমনের ছেলে। ঘটনার পর ঘাতক পালিয়ে যায়। মিনতি মুন্ডা শিক্ষকতার পাশাপাশি লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছিলেন এবং এবার জুড়ী টিএন খানম কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন এবার।

সূত্র আরও জানিয়েছে, দীর্ঘ ৩ বছর থেকে রিকমন ও মিনতির প্রেম চলছিল। হঠাৎ করে মিনতি রিকমনকে ছেড়ে সিলেটের জনৈক শ্রীবাস নামের একটি ছেলের সাথে সম্পর্কে জড়ায়। বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি রিকমন। তাই সে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ঘটনার দিন দুপুর দেড়টার দিকে স্কুল ছুটি দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মিনতি মুন্ডার গতিরোধ করে। মিনতির সাথে থাকা এক বান্ধবী বাঁধা দিলে তাকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে পরিত্যক্ত একটি ঘরে নিয়ে গলায় ছুরি পুঁচিয়ে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মিনতি মুন্ডাকে খুন করে।

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মনিরুজ্জামান জানান, রিকমন বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে। প্রেমে ব্যর্থ হয়ে সে মিনতিকে খুন করেছে বলে আদালতে জানিয়েছে সে।