শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে মৌলভীবাজারে অধিকার’র র‌্যালী ও আলোচনাসভা



1
মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :
নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে মৌলভীবাজারে অধিকার’র আয়োজনে মানবাধিকার সুরক্ষায় র‌্যালী ও আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়।

শুক্রবার ২৬ জুন বিকেল ৪টায় মৌলভীবাজার শহরের সিকন্দর আলী রোডস্থ হামিদিয়া পয়েন্টে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন অধিকার’র মৌলভীবাজার জেলা ফোকাল পার্সন ও মানবাধিকার কর্মী এডভোকেট নুরুল ইসলাম শেফুল।

আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আনহার আহমদ সমশাদ, বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক কল্যাণ ইউনিয়ন মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতি শ, ই, সরকার জবলু, পুলিশের নির্যাতনের শিকার সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম, আইন সহায়তা কেন্দ্র আসক মৌলভীবাজার এর  মোঃ মতিউর রহমান, বাংলাদেশ  হিউমেন রাইটস রিভিউ সোসাইটি মৌলভীবাজার জেলা শাখার সম্পাদক মশাহিদ আহমদ,  শিশু সংগঠন সবুজকুঁড়ির আসর এর পরিচালক আব্দুল কাইয়ুম, দৈনিক আজকালের খবর এর মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি হোসাইন আহমদ, সাংবাদিক এমদাদুল হক, মানবাধিকার কর্মী হাসান আহমদ প্রমুখ। সভার শুরুতে নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসের মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধিকার’র মৌলভীবাজার জেলা ফোকাল পার্সন ও মানবাধিকার কর্মী এডভোকেট নুরুল ইসলাম শেফুল। এর আগে শহরে এক র‌্যালী বের করা হয়।

অধিকার’র সংগৃহীত তথ্যানুযায়ী ২০০৯ সালের জানুয়ারী থেকে ২০১৫ সালের মে পর্যন্ত অন্ততঃপক্ষে ৯১ জন মানুষ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের হাতে নির্যাতনের কারণে মৃত্যুবরণ করেছে। সভা থেকে সরকারের কাছে নির্যাতন বন্ধে ‘অধিকার’ ছয়টি সুপারিশ করে। সুপারিশগুলো হলো:- (১) নির্যাতন বিরোধী আন্তর্জাতিক সনদে অনুস্বাক্ষরকারী রাষ্ট্র হিসেবে জাতিসংঘের এবং বাংলাদেশের সংবিধানের বাধ্যবাধকতা অনুসরন করতে হবে। (২) অবিলম্বে নির্যাতন বিরোধী আইন বাস্তবায়নসহ নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু বন্ধ করতে হবে। (৩) নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যদের বিচারের সম্মুখিন করতে হবে। (৪) মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নয়ন এবং নির্যাতন বন্ধে অবিলম্বে একটি স্বাধীন ও পৃথক তদন্তকারী প্রতিষ্ঠান গঠন করতে হবে। (৫) ২০০৩ সালে ব্লাস্ট বনাম বাংলাদেশ মামলায় দেয়া সুপ্রিম কোর্টের রায় বাস্তবায়ন করতে হবে। ও (৬) নির্যাতন প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে মানবাধিকার রক্ষাকর্মীদের বাধা দেয়া চলবে না।