বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সংস্কারের উদ্যোগ নেই ? কমলগঞ্জের গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তাঘাট খানাখন্দে ভরপুর ॥ জনসাধারণের চরম দূর্ভোগ



Pic- Road

কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
টেলিভিশনের দেখি নেতারা কত সুন্দর করে উন্নয়নের কথা বলে থাকেন। বাস্তবেও বিভিন্ন সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উন্নয়নের কথা চমৎকার ভাবে তুলে ধরেন। এই করছি সেই করছি। রাস্তাঘাট করছি সবই করছি। এ সরকার উন্নয়নের সরকার, তাই বার বার দরকার। আমরাও চাই উন্নয়নের সরকার বার বার দরকার। কিন্তু উন্নয়নের নামে সব জায়গায় ভাগ দিয়ে ঠিকাদার ভাইয়েরা কি আর বা কাজ করাবেন। বড় থেকে ছোট মহল পর্যন্ত ভাগ দিয়ে শূন্য কোঠায় এসে রাস্তার কাজ করানো কতটুকু বা লাভ হয় ঠিকাদারদের। তাই কোন রকম কাজ করে রাস্তা পাকা করে আসেন। আর ওই রাস্তা  বছরের মধ্যে ভেঙ্গে খানাখন্দে ভরে যায়। কথা গুলো কমলগঞ্জের সচেতন মহল এভাবেই মন্তব্য করলেন।
সরজমিন কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা যায়,  গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তাঘাট খানাখন্দে ভর পুর। কোন কোন স্থানে বিশাল গর্ত দেখা দিয়েছে। ভেঙ্গে যাচ্ছে রাস্তার বিভিন্ন স্থান। এতে করে যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচলের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তা ঘাট সংস্কারের উদ্যোগ নিতে দেখা যাচ্ছে না। গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দ দেখা দিয়েছে। এসব রাস্তাগুলো অতি নি¤œমানের কাজ হওয়ার ফলে সহজেই ভেঙ্গে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের কাছে গর্তের কথা বলা হলেও প্রতিকারের কোন গ্রহণ করতে দেখা যায়নি।
কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর, পতনঊষার, মুন্সীবাজার, শমশেরনগর, কমলগঞ্জ সদর, আলীনগর, আদমপুর, মাধবপুর ও ইসলামপুর ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা রয়েছে। সব ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তাঘাট খানাখন্দ দেখা দিয়েছে। তার মধ্যে পতনঊষার ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রামীণ রাস্তাঘাট ভেঙ্গে জনসাধারণ ও যানচলাচলের অসুবিধা সৃষ্টি হচ্ছে। বিশেষ করে মুন্সীবাজার-রামেশ্বরপুর রাস্তা। আহমদনগর- রাজদিঘীরপার-বৃন্দাবনপুর রাস্তা। এভাবে উপজেলার বিভিন্ন স্থানের রাস্তা রয়েছে। গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তাঘাটের সংস্কারের বিষয় সম্পর্কে কমলগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী কিরণ চন্দ্র দেবনাথ এ প্রতিনিধিকে জানান, উপজেলার যত গ্রামীণ অবকাঠামো রাস্তাঘাট খানাখন্দ ও ভাঙন দেখা দিয়েছে সবগুলো রাস্তার প্রকল্প তৈরি করে পাঠানো হয়েছে। প্রকল্প পাশ হওয়ার পর রাস্তাগুলো মেরামত করা হবে।