বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পূরণে কাজ করতে চাই: রোমিও



11131766_10204112948884691_876896943_n

কমলকুঁড়ি প্রতিবেদক

আমাদের দেশের অনেক বাঙালী আছেন যারা বিদেশে থেকেও দেশের কথা চিন্তা করেন। দেশের কল্যাণে এগিয়ে আসেন। দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।সেই রকমই একজন বাঙালী লন্ডন প্রবাসী মার্গুব মোর্শেদ রোমিও। তিনি শ্রীমঙ্গল কমলগনগ নির্বাচিত এলাকার ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য, সাবেক চীপ হুইপ, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সম্গ্রামী সভাপতি উপাধক্য আব্দুস শহিদ এম পির একমাত্র ছেলে। বাংলাদেশ সম্পর্কে ও নিজের জন্মস্থান সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে রোমিও জানান, আমি যুক্ত রাজ্যে বসবাস করছি, কিন্তু আমার মন সবসময় দেশেই পড়ে আছে, বিশেষ করে আমার জন্মস্থান শ্রীমঙ্গলের কমলগঞ্জের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আমাকে সব সময় কাছে টানে। আমি এবং আমার পরিবার এ এলাকার মানুষের ভালবাসায় সিক্ত। আমি আমার পরিবার আমরা কৃত্গ শ্রীমঙ্গল কমলগনগ এলাকার সর্বসাধারণের প্রতি। মৌলভীবাজার জেলা বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি। আমাদের এই জেলা বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময়ী পর্যটন এলাকা হতে পারে বলে আমি মনে করি । প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এই লীলাভূমিকে কিভাবে পর্যটন নগরী হিসেবে সরকারি ভাবে সীকৃতি আদায় করা যায় তার জন্য আমার বাবা মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি,সাবেক চিপ উইপ উপাধক্য আব্দুস শহিদএম পি। বীর মুক্তি যুদ্দা সাবেক উইপ ,এম পি প্রশাসক আজিজুর রহমান। মাননীয় সমাজকল্যাণ মন্ত্রী মসহীন আলী এম পি ,বর্তমান হুইপ শাহাব উদ্দিন এম পি সহ সকল নেত্রীবৃন্দের সু দৃষ্টি আসা করেছি। কেন এই জেলাকে পর্যটন নগরী হিসাবে প্রাতিষ্টানিক ভাবে অনুমুধন করা হবে এ সম্পর্কিত যুক্তিযুক্ত একটি প্রপোজাল পর্যটন মন্ত্রণালয়ে পাঠানু যেতে পারে, যাতে করে আমাদের এই সুন্দর জেলাকে একটি পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলা যায়। আমি বিশ্বের অনেক দেশ ভ্রমণ করেছি, কিন্তু সেসব দেশের সৌন্দর্য মৌলভীবাজারের সৌন্দর্যের কাছে তুলণাহীন আমি মনে করি । যার কারণে এই জেলার সৌন্দর্য আমাকে সবসময়ই কাছে টানে। রোমিও বলেন এই এলাকার আর্থ-সমাজিক উন্নয়ন, মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন হোক সেটা শুধু আমার প্রত্যাশা নয়, এটা আমার প্রাণের দাবি। বাংলাদেশের সুযুগ্য প্রধান মন্ত্রি, আমার নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে যাচ্ছে।মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সুযুগ্য নেতৃত্বে আমরা ভিসন ২০২১ বাস্তবান করতে চাই, এবং বাংলাদেশকে একটি সুখী সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। তারুণ্যের অহংকার ও ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার সজীব ওয়াজেদ জয়ের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নকে আমি সমর্থন করি এবং তিনির নেতৃত্বে ই প্রবাসে থেকে কাজ করে যাচ্ছি । আমাদের সবাইকে একযোগে এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। মার্গুব মোর্শেদ রোমিও বাংলাদেশ থাকাকালীন Worked forThe British Council under the Examination services ,The Standard Bank under the trainee programme in 2007. ইউনাইটেড কিংডম এ study complete করেন The Bachelors of business administration (BBA) in HRM 2008. Masters In International Human Resource Management 2009, পাশাপাশি রোমিও Worked for a Wilkinson Ltd HR section লন্ডন ইন 2008. রোমিও বিবাহিত। স্ত্রী লিনা জার্মানিতে এমবিবিএস( MBBS) মেডিসিন এর উপর পড়ালেখা করছেন। বাবার সমাজ সেবা রাজনৈতিক আদর্শ, বঙ্গ বন্দুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভীসন ২০২১,সজীব ওয়াজেদ জয়ের ডিজিটাল বাংলাদেশ সবগুলু বাস্তবায়ন হবে সেই মনোবল নিয়ে আগামীতে স্ত্রী লিনাকে নিয়ে বাংলাদেশের সুবিধা-বঞ্চিত মানুষের বিশেষ করে শ্রীমঙ্গল কমলগন্গ এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চান। কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, “এই এলাকার মানুষের ভালবাসায় আমি আমার পরিবার ধন্য “।