শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আদমপুরে মৈতৈ মণিপুরি নববর্ষ উদযাপন



pic-2[1]
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার পর মণিপুরিদের কাং, কড়ি খেলা, রশি টানাটানি আর বনদেবীর সন্তোষ্টিতে পূজা অর্চনা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের ভানুবিল মাঝেরগাঁও উন্মুক্ত মাঠে দিনব্যাপী চলে মৈতৈ মণিপুরী সম্প্রদায়ের মণিপুরি চৈরাউবা কুম্মৈ-৩৪১৩ (মণিপুরি নববর্ষ উদযাপন ৩৪১৩)। শনিবার উন্মুক্ত স্থানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া ও শ্রী হামোম গোপাল সিংহের নেতৃত্বে মণিপুরি ঐতিহ্যবাহী পোষাক পরিধান করে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মাধ্যমে মৈতৈ মণিপুরি নববর্ষ উদযাপনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। মাঝেরগাঁও মন্ডপে মণিপুরি ছেলে-মেয়েদের অংশগ্রহণে গ্রাম ভিত্তিক যৌথ অংশগ্রহনে শুরু হয় মণিপুরি জাতীয় “কাং ও রশি টানাটানি খেলা”। পরে গৃহিণীরা বৃদ্ধা ফল, ফুল ভোগ দিয়ে আগরবাতি ও মোমবাতি জালিয়ে নানা আয়োজনে গান গেয়ে বনদেবীর সন্তোষ্টিতে “সারোয় খাঙবা” (বনদেবীর) পূজা করেন। বনদেবী খুশি থাকলে এ বছর তাদের প্রাকৃতিক নিরাপত্তা থাকবে এ বিশ্বাসে বনদেবীর পূজা। মাঝেরগাঁও মন্ডপে মণিপুরি নারী-পুরুষের যৌথ অংশগ্রহনে চলে ঐতিহ্যবাহী “লেকোন শান্নবা” বা কড়ি খেলা। পরে উন্মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সন্ধ্যায় আমন্ত্রিত অতিথিদের অংশ গ্রহনে  কবি এ কে শেরামের সভাপতিত্বে মৈতৈ মণিপুরী নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল মতিন। রাত সাড়ে ৮টায় ছেলে-মেয়েদের অংশ গ্রহনে মণিপুরিদের বর্ণাঢ্য লোকনৃত্য পরিবেশন করা হয়। এবার ২১ মার্চ নানা আয়োজনে ৩৪১৩ তম মণিপুরি চৈরাউবা কুম্মৈ বা মণিপুরি নববর্ষ ৩৪১৩ উদযান করছেন।