শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে মা-বাবার কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী ॥ লাখো মানুষের শেষ শ্রদ্ধা



Pic-3
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি, মৌলভীবাজার পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়েছে। ১৬ সেপ্টেম্বও বুধবার বাদ আছর মৌলভীবাজার শহরের হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (র.) মাজার শরীফের পাশে মা-বাবার কবরের কাছে তাঁকে চিরনিদ্রায় তাঁকে শায়িত করা হয়।Pic-1
এর আগে দুপুরে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত লাখো মানুষ তাঁর কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। দলমত নির্বিশেষে আওয়ামীলীগ অঙ্গ সংগঠন, বিএনপি অঙ্গ সংগঠক, জাতীয়পার্টি, প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, পুজা উদযাপন পরিষদ, সকল উপজেলা চেয়ারম্যানবৃন্দ, শিক্ষা প্রতিষ্টানসহ সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহ শ্রদ্ধা নিবেদন করে।
বিকেল ৪টায় মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা পড়ান মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দীকি। এ সময় শহরের দোকানপাঠসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে সব ধর্ম-বর্ণের লোক মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ছুটে আসেন।
জানাযায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, সাবেক চিফ হুইপ ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ এমপি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিন, জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, সংসদ সদস্য আবদুল মতিন, সিলেট সাবেক সিটি মেয়র বদর উদ্দিন কামরান, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের প্রশাসক আজিজুর রহমান প্রমুখ।
গত সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা ৫৯ মিনিটে সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সৈয়দ মহসীন আলীর (৬৭) মৃত্যু হয়। তাঁর প্রথম জানাজা সিঙ্গাপুরের এঙ্গোলিয়া মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার রাতে তাঁর মরদেহ ঢাকায় পৌঁছে। আজ সকালে তাঁর দ্বিতীয় জানাজা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়।
ঢাকায় আনুষ্ঠানিকতা শেষে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিমান বাহিনীর জলপাই রঙের হেলিকপ্টারে করে মৌলভীবাজার এম সাইফুর রহমান স্টেডিয়ামে সৈয়দ মহসিন আলীর মরদেহ নিয়ে আসা হয়। সেখানে হাজার হাজার মানুষ তাঁকে শেষবারের শ্রদ্ধা জানাতে ও দেখতে ভিড় করে।
স্টেডিয়াম থেকে সৈয়দ মহসিন আলীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় শহরের শ্রীমঙ্গল রোডের নিজবাড়ি ‘দর্জি মহলে’। সেখানে কিছু সময়ের জন্য মরহুমের মরদেহ পরিবারের সদস্য এবং নিকট আত্মীয়দের দেখার জন্য রাখা হয়। এ সময় স্বজনদের কান্নায় সেখানে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। হাজার হাজার মানুষ কান্নায় ভেঙে পড়ে। বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান। পরিবারের পক্ষ থেকে রাখা শোক বইয়ে অনেকেই অভিব্যক্তি লিখেন।
নিজবাড়ি থেকে দুপুর ২টায় মরহুমের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে। সেখানে বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের মানুষ তাঁকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।
পরে সৈয়দ মহসিন আলীকে দাফনের জন্য নিয়ে যাওয়া হয় হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (র.) মাজার প্রাঙ্গণে। সেখানে তাঁর পিতা মাতার পাশে শেষ নিদ্রায় শায়িত হন।