শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও মানবাধিকার শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত



DC-Moulvibazar
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ‘দলিত জনগোষ্ঠীর জীবন চিত্র: আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও মানবাধিকার’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় চা শ্রমিকদের সাপ্তাহিক ছুটির দিনের মজুরিসহ দলিত জনগোষ্ঠীর ৮ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। শনিবার (১১ জুলাই) দুপুর সোয়া ১২টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে নাগরিক উদ্যোগ এর সহযোগিতায় বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলন (বিডিইআরএম) এই আলেঅচনা সভার আয়োজন করে। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান।
বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার মৃধার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা। নাগরিক উদ্যোগ এর প্রজেক্ট কোঅর্ডিনেটর এবিএম আনিসুজ্জামান এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান পারভীন আক্তার লিলি, রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল, আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বাদশা, গবেষক ও উন্নয়ন চিন্তক আহমদ সিরাজ, সাংবাদিক মুজিবুর রহমান, মাসিক চা মজদুর সম্পাদক সীতারাম বীন, মহিলা ইউপি সদস্যা গৌরী রানী কৈরী, মেরী রাল্ফ, বিডিইআরএম মৌলভীবাজার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় চৌহান, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রতাপ চন্দ্র শব্দকর প্রমুখ।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান বলেন, দলিত জনগোষ্ঠীসহ অনগ্রসর সকল জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, এ দেশ আমাদের সকলের। এদেশকে ভালবাসতে হবে। বর্তমান সরকার দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং আইনী সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। কোন জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য সর্বপ্রথম প্রয়োজন তাদের নিজেদের উদ্যোগ। তিনি বলেন, প্রতিটি মানুষ সমান মর্যাদার অধিকারী, জাতি বর্ণের কারণে কোন মানুষকে অধিকার বঞ্চিত করা যাবে না। আমাদের সংবিধানে সকল নাগরিকের সমান অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। কোন জনগোষ্ঠীকে পিছনে রেখে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, কোন কাজ করা ছোট নয়। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে ভিশন ২০২১ অর্জনে দলিত জনগোষ্ঠীসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
সভায় অন্যান্য বক্তারা বিডিইআরএম-এর ৮ দফা দাবির সাথে সম্পূর্ণ একমত পোষন করেন। কোন বঞ্চনা চিরকাল টিকে থাকেনি, আজকের দিনের বঞ্চনাও চিরদিন থাকবে না, তবে তার জন্য দরকার সমাজের সকল মানুষের ইতিবাচক মানসিকতা। আমাদের সকলের মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে, সাথে সাথে দলিত জনগোষ্ঠী যেভাবে মানুষকে সচেতন করার কাজ করে যাচ্ছে তা অব্যাহত রাখতে হবে।