শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শমশেরনগরে ওজনে কম থাকায় ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা গ্রহণ করেনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের খাদ্য সহায়তা চা বাগান থেকে ফিরে গেল বিশেষ খাদ্যসহায়তবাহী গাড়ি



Pic 02
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানে ওজনে কম থাকায় ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক বিশেষ খাদ্য সহায়তা কর্মসূচীর আওতায় খাদ্য সামগ্রী গ্রহণ করেনি। শনিবার দুপুরে শমশেরনগর চা বাগানের মন্ডপে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করতে গেলে ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের আপত্তির মুখে খাদ্যবাহী গাড়ি ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে। শনিবার (২০ জুন) দুপুরে শমশেরনগর চা বাগানের নাচঘর চত্তরে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করতে এসেছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান।
চা শ্রমিকদের অভিযোগে জানা যায়, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক চা শ্রমিকদের জন্য চাল, ডাল, তেলসহ বিশেষ খাদ্য সহায়তাবাহী খাদ্য সামগ্রী বিতরনের জন্য দুইটি ট্রাকযোগে মালামাল নিয়ে চা বাগানে আসে। এ সময়ে প্যাকেটে পরিমাণ কম দেখে সন্দেহ হলে ওজন করে দেখা যায়, ১৫ কেজি চালের স্থলে ১০ কেজি চাল, ৯ কেজি ডালের স্থলে ৬ কেজি, আটা ১৫ কেজির স্থলে ১২ কেজি, আলু ১৫ কেজির স্থলে ১৩ কেজি, নি¤œ মানের শাড়ি থাকায় শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। এরপর কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে খাদ্য সহায়তা বিতরণ বন্ধ করেন। পরে খাদ্য পরিবহনবাহী গাড়ি বিতরণের জন্য নিয়ে আসা খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ফিরে যায়।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কমলগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা অফিসার সরজিত কুমার পাল বলেন, ঠিকাদার কর্তৃক ওজনে পরিমাণ কম দেয়ার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে আগামী সোমবার পরিমাণ মতো এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে।
অভিযোগ সম্পর্কে ঠিকাদার ইকবাল পারভেজ চৌধুরী বলেন, তার নামের প্রতিষ্ঠানে খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হচ্ছে ঠিক। তবে শনিবার শমশেরনগর চা বাগানে কি হয়েছে তা তিনি জানেন না। এর সঠিক তথ্য দিতে পারবেন কমলগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা।