বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জের ইসলামপুরে সরকারি কাজে বাধা।। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের ঘরে আগুন ।। আদালতে মামলা দায়ের



ইসলামপুর প্রতিনিধি ।।

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের রান্নাঘরে আগুন দিয়ে প্রতিবাদী লোকজনের বিরুদ্ধে ঘর পোড়ানো ও মালামাল লুটে নেয়ার মামলা দেয়া হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, কমলগঞ্জের ভান্ডারীগাঁও গ্রামে সরকারি রাস্তার উন্নয়নকাজ চলছে। ওই কাজে বাধা দেন একই গ্রামের আছকর মিয়া। সরকারি রাস্তার কাজে আছকর মিয়া বাধা দিলে গ্রামের লোকজন তার প্রতিবাদ করেন।   গত ৩রা জুন গ্রামের রাস্তার কাজ চলাকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির উপস্থিতিতে আবার আছকর বাধা দিলে স্থানীয় লোকজন জোরালো প্রতিবাদ করেন। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিবাদকারী পাশের ঘরের চিনু মিয়ার ছন-বাঁশের বসতঘরে আছকর মিয়া আগুন দেন বলে প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয়রা জানান।   লোকজন যখন চিনুর ঘরের আগুন নেভানোর কাজে ব্যস্ত তখন নিজের রান্নাঘরে আগুন দেন আছকর মিয়া। এতে তার রান্নাঘরটি পুড়ে গেলেও আশপাশের লোকজন রক্ষা করেন আছকর মিয়ার বসতঘর।    এ ঘটনায় প্রতিবাদকারী মুহিব মিয়া, সালাউদ্দিন, চিনু মিয়া, আবদুর, জাকের মিয়াসহ ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে ৯ই জুন মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২নং আমলি আদালতে পিটিশন মামলা করেন আছকর মিয়ার স্ত্রী বানেছা বেগম।   মামলায় বলা হয়, আসামিরা তার বসতঘরে হামলা চালিয়ে ঘরের আসবাবপত্রসহ মালামাল, নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার লুটপাট করে সম্পূর্ণ বসতঘরটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেন।   মালামালের সঙ্গে লুট করে নেন দুটি গরু ও ৪টি ছাগল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে অনুসন্ধানপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এএসপি সার্কেলকে নির্দেশ দিয়েছেন।  আছকর মিয়ার রান্নাঘরটি পুড়ে গেলেও তার বসতঘরটি অক্ষত রয়েছে। আসবাবপত্র সবই রয়েছে বসতঘরে। বর্গা আনা ছাগল গরু দিয়ে দিয়েছেন মালিকদের। এ প্রসঙ্গে আলাপ করার জন্য আছকর মিয়া ও মামলার বাদী বানেছা বেগমকে পাওয়া যায়নি।