শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

নিসংশতার বলি খেলা ষাঁড়ের লড়াই চলছেই!



Bull-Fights

এসএমএ হাসনাতঃ

চারিদিকে বিপুল সংখ্যক দর্শক-শ্রোতার হ্রষধ্বনি চলছে। তাল
মিলিয়ে দিচ্ছে করতালি। মুখে শিটি। সব মিলিয়ে একটি উৎসবের আমেজ। হঠাৎ কড়
মড়ে শব্দ! আবার হুশ হুশ শব্দ! ঘুঙ্গুরে টুন টান রিনি ঝিনি শব্দ। ষাড়ের
ভয়ে মাঠ ভর্তি মানুষের পড়ি মরি করে দৌড়।
দশাসই নাদুস নুদুস ষাঁড়ের মাথায় সিদুরের আবীর। পেটের কাছে আছে হুজুরের
তাবিক কবজ। আগে শরীরের ছিটানো হয়েছে হুজুরের পড়া পানি। শিং জোড়ায় চকচক
করছে তেল। শিং তো নয় যেন যুদ্ধক্ষেত্রের কোন যোদ্ধার খোলা তরবারী। শিংয়ের
ছুচালো মাথা দেখলে যে কেউ ভয় পাবে।
কিছুক্ষণ পরে দেখা গেল কালো রঙ্গের ‘বিরতি’ নামীয় ষাঁড়ের কানের গোড়া দিয়ে
গল গল করে রক্ত বেরুচ্ছে। অপর পক্ষের ‘আর্শীবাদ’ নামের ষাড়ের গলা থেকে
ফিনকি দিয়ে রক্তের বন্যা বইয়ে যাচ্ছে। এমন একটি লোমহর্ষক ও ভয়ংকর ষাঁড়ের
লড়াই উপভোগ করলো বান্দের বাজার ফুটবল মাঠে।
অন্য আর দশটা দিনের মতো ফুটবলারদের অনুশীলন দৃশ্য যেন পাল্টে গিয়েছিল
এসময়! ৭ মে বৃহস্হপতিবার বিকেলে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার বান্দের
বাজারে স্থানীয় উদ্যোক্তাগণ আয়োজন করে ষাঁড়ের লড়াইয়ের।
আবহমান কাল থেকে গ্রামে গঞ্জে আয়োজিত হতো এই ষাড়ের লড়াই। এখন আর সে রকম
হয় না। এমনটাই জানালেন ইনাতগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের গভনিং বডির সদস্য মহিবুর
রহমান আপার।
আগের জমিদার-গেরস্থগণ তাদের শৌজবীর্য প্রদর্শণের অংশ হিসেবে নৌকা বাইচ,
ঘোড়দৌড় কিংবা ষাঁড়ের লড়াইয়ের আয়োজন করতো। এধরণের আয়োজনে লাটালাঠি,
সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
জমজমাট ষাঁড়ের লড়াই দেখতে সম্প্রতি হবিগঞ্জ ও তার আশেপাশের কয়েক হাজার
মানুষ ভিড় করেছিল মাঠে। ষাঁড়ের লড়াই যেমন দর্শকদের আনন্দ দেয়, তেমনি
লোমহর্ষক লড়াই দেখে অনেকেই শিহরিত হন।
ষাঁড়ের লড়াই প্রতিযোগিতাকে কেন্দ্র করে গোটা এলাকায় উৎসব আমেজ দেখা যায়।
এলাকার ষাঁড় মালিকরা গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ষাঁড়ের লড়াই আয়োজন করেছিল এ
মাঠে। দূর-দূরান্ত থেকে উৎসুক মানুষকে লড়াই দেখে তাদের ফিরে গেছে
আনন্দচিত্তে।