বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় মাদক সম্রাট তানু মিয়া গ্রেফতার



unnamed-140

কুলাউড়া থেকে সংবাদদাতা ।।

কুলাউড়ার শরীফপুর সীমান্ত থেকে মাদকাসক্ত অবস্থায় বহুল আলোচিত মাদক সম্রাট আব্দুল আউয়াল তানু মিয়াকে ১০ বোতল ভারতীয় মাদক কুরেক্সসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ১৪ ফেব্রুয়ারী শনিবার রাতে শরীফপুর ইউনিয়নের মনু সেতু সংলগ্ন ঘাট বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তানু শরীফপুর ইউনিয়নের সঞ্জরপুর গ্রামের মৃত জমির আলী পুত্র। সে জিআর ২০৬ /১৪ ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী ছিল। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

পুলিশি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের ভাই আব্দুল আউয়াল তানু মিয়া (৩৬) শরীফপুর সীমান্তে ভারতীয় মাদক ব্যবসা ও চোরাচালানি নিয়ন্ত্রণ করতো। শরীফপুর সীমান্ত থেকে শমশেরনগর হয়ে সারা জেলায় সে ভারতীয় বিভিন্ন জাতের মাদক সরবরাহ করেত।এব্যবসার জন্য তার একটি নিজস্ব বাহিনীও রয়েছে। সে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চুরির সাথে জড়িত থাকায় ইতিপূর্বে গ্রেফতার হয়ে কারাভোগ করেছে। স্থানীয়ভাবে চাঁদাবাজি, কৃষকদের ফসল লুণ্ঠনসহ মানুষজনকে মারপিটসহ একাদিক সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ রয়েছে। তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের ভয়ে এলাকাবাসী তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পায়নি। তানু গ্রেফতারের খবরে তার নির্যাতনের শিকার স্থানীয় মানুষের স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলছেন।
জানা যায় গত বছর জুলাই মাস থেকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ( বিজিবি)-র সদস্যরা একাধিকবার অভিযান চালিয়ে মাদক সম্রাট তানুকে গ্রেফতার করতে পারেনি। বিজিবি সীমান্তে মাদক ব্যবসা প্রতিরোধ মূলক আইন শৃঙ্খলার সভা করে তাকে ধরিয়ে দিতে সীমান্তবাসীর সহযোগিতা কামনা করলে গত বছর জুলাই মাসে মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের নিয়ে শরীফপুরে ও ভাই ইউপি চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের সহযোগিতায় শরীফপুর ইউনিয়নে দুই দিনের হরতাল পালন করেছিল তানু মিয়া। এ হরতাল চলাকালে যাত্রী পরিবহন করায় সিএনজি অটোরিক্সা আটকিয়ে ভাঙ্গচুর করাসহ চালক হায়দর আলীকে মারপিট করেছিল এ ঘটনায় চালক হায়দর আলী তানু মিয়ার বিরুদ্ধে কুলাউড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। তাছাড়া বিজিবির মাদক বিরোধী সচেতনতা মূলক সভার সংবাদ প্রকাশ করায় স্থানীয় এক সাংবাদিককে মুঠোফোনে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়েছিল মাদক সম্রাট তানু মিয়া। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় একটি নিরাপত্তা মূলক ডায়েরীও করা হয়। সম্প্রতি আবার শরীফপুর ইউনিয়নের সদস্য নসিবুর রহমানকে প্রাণ নাশের হুমিক দিলে ইউপি সদস্য কুলাউড়া থানায় একটি নিরাপত্তা মূলক ডায়েরী করেন। এসব অভিযোগের ভিত্তিতে কুলাউড়া থানার সহকারী পরিদর্শক রফিকুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ১০ বোতল ভারতীয় মাদক কুরেক্সসহ মাদক সম্রাট তানু মিয়াকে গ্রেফতার করে। কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মতিয়ার রহমান মাদক সম্রাট আব্দুল আউয়াল তানু মিয়াকে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তার উপর পুলিশ এসসল্ট মামলা ও চাঁদাবাজি মামলাসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।