শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জের কানিহাটি চা বাগানে ৯০ লিটার চোলাই মদসহ আটক-১



  কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর কানিহাটি চা বাগানে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৯০ লিটার চোলাই মদসহ সাজন মৃধা (২৫) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ৮টায় শমশেরনগর কানিহঁটি চা বাগানের বিনদ মৃধার ঘর থেকে মদসহ কারিগরকে আটক করে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শমশেরনগর কানিহাটি চা বাগান থেকে ৯০ লিটার দেশীয় চোলাই মদসহ সাজন মৃধাকে হাতেনাতে আটক করা হয়। সে উপজেলার ডবলছড়া চা বাগানের পার্বতি মৃধার ছেলে। কানিহাটি চা বাগানের বিনদ মৃধার ঘরে মদ তৈরীর কারিগর হিসাবে কর্মরত ছিল সে। তবে মদ উৎপাদনকারী বিনদ মৃধাকে আটক করা যায়নি। বিনদ মৃধা দীর্ঘ সময় ধরে নিজ ঘরে মদ উৎপাদন ও ব্যবসা করে আসছে। শমশেরনগর ফাঁড়ির পুলিশ মদসহ সাজন মৃধাকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করেছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে কানিহাটি চা বাগানের একজন শ্রমিক জানান, চা বাগানে যে কি পরিমাণে শ্রমিকরা মাদকাসক্ত হয়ে বিশৃঙ্খল জীবন ধারন করছে সেটি বলতে আমাদের লজ্জা হয়। প্রায় অর্ধ শতাংশ পুরুষ শ্রমিক সারাদিনে পরিশ্রম করে যে টাকা পায় সেটি দিয়ে দিনে ও রাতে মদ পান করেই শেষ করে দেয়। ফলে শ্রমিকদের শারীরিক সমস্যা ও পরিবার সমুহ আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।
আলীনগর চা বাগানের রাজদেও কৈরী, দেওন্তী বাউরী, শমশেরনগর দেওছড়া বাগানের দেওরাজ রবিদাস জানান, পুরুষরা সন্ধ্যার পর মদের পাট্টায় গিয়ে মদ পান করে মাতাল হয়ে উঠেন। পরে রাস্তাঘাটে ও ঘরে এসে ঝগড়া-ঝাটি, মারধোর, হাড়ি-পাতিল ভাঙচুর এবং সন্তানদেরও গালিগালাজ করেন। তারা আরও বলেন, এসব মদ পান করে যুব সমাজ ধ্বংস, জীবন যাত্রায় ব্যাঘাত, পরিবেশ বিনষ্ট, শারীরিকভাবে সমস্যাসহ আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে।
শমশেরনগর ফাঁড়ির উপপরিদর্শক আব্দুর রহমান গাজি ৯০ লিটার চোলাই মদসহ একজনকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে। আটক ব্যাক্তিকে মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
কমলগঞ্জ থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী জানান, মাদক, জুয়া, চুরি-ডাকাতি এসব বন্ধে আমাদের কঠোর অবস্থান রয়েছে। আমি সদ্য যোগদান করেছি। সকলের সহযোগিতায় অপরাধ প্রবণতা মুক্ত করতে চাই।