বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে গেটবিহীন রেলক্রসিং : ঝুঁকিতে পর্যটকরা



shamseerblog_1274262763_2-cকমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।
বাংলাদেশ রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলীয় সিলেট-আখাউড়া রেলপথের ভানুগাছ-শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যবর্তী স্থান কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান। গেটবিহীন রেল লেভেল ক্রসিংয়ের ফলে উদ্যানে আসা পর্যটকরা ঝুঁকি নিয়েই রেললাইন পারাপার হন।

কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বুক চিরেই বহমান আখাউড়া-সিলেট রেলপথ। আর ওই রেলপথের লাউয়াছড়া বনের বন বিশ্রামাগারের সামনেই ২৯৪/৩-৪ কিলোমিটারে রেলওয়ের ই/৭৫ নম্বর লেভেল ক্রসিংটি। রেল ক্রসিংটির উভয় পাশে সতর্কীকরণ সাইনবোর্ড স্থাপন করেই অরক্ষিত ও গেটম্যানবিহীন রয়েছে।

গেটবিহীন এ রেলক্রসিং এখন পর্যটকদের মরণফাঁদে পরিণত হতে চলেছে। কারণ, লাউয়াছড়ায় বেড়াতে আসা পর্যটকরা রেলপথ পারাপার ও রেলের ওপর বসে সেলফি তোলা, ঘোরাফেরা ও পছন্দের ছবি তুলে থাকেন। গেটি খোলা থাকায় বন বিভাগেরসহ ভিআইপিদের যানবাহন অবাধে যাতায়াত করায় যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।

লাউয়াছড়া বনবিট কার্যালয় সূত্র জানায়, ১৯২০ সালে ১২৫০ হেক্টর এলাকাজুড়ে গাছ গাছালি সৃজন করে গড়ে তোলা হয় গ্রীষ্মমণ্ডলীয় এই পাহাড়ি চিরসবুজ বনাঞ্চল। এ জাতীয় উদ্যানে বিরল প্রজাতির বন্যপ্রাণী, পাখি ও গাছগাছালি থাকায় এখানে দেশী বিদেশী পর্যটকদের আগমন বেশী। প্রতিদিনই লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানটি মুখরিত থাকে পর্যটকদের উপস্থিতিতে।

বিশেষ করে ছুটির দিন শুক্রবার ও শনিবার উপস্থিতি থাকে বেশী। পর্যটকদের এই চাপটি সবার আগে পড়ে এই রেল লেভেল ক্রসিংয়ের ওপর। ঘন বনাঞ্চলে রেলপথ বলে এই এলাকা ট্রেন অতিক্রম করার বিষয়টি আগাম জানার বা দেখার কোন সুযোগ নেই পর্যটকদের।

লাউয়াছড়ায় জীববৈচিত্র্য রক্ষার কাজে নিয়োজিত ক্লাইমেট রেসিলিয়েন্ট ইকোসিস্টেমস লাইভলিহুড (ক্রেল) প্রকল্পের যোগাযোগ কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ রেল লেভেল ক্রসিং এলাকায় দ্রুত একটি গেট নির্মাণ করে একজন গেইটম্যান নিয়োগ করা প্রয়োজন।

লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ইমতিয়াজ আহমদ বলেন, বেশ কয়েক বছর আগে রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বিভাগীয় বন কর্মকর্তার (বন্যপ্রাণী) মাধ্যমে এখানে একটি গেট স্থাপনের আবেদন করা হয়েছিল। আজ পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

তবে বাংলাদেশ রেলওয়ের গণপূর্ত বিভাগের শ্রীমঙ্গলস্থ সহকারী প্রকৌশলী আলী আজম মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভেতর লেভেল ক্রসিং এলাকায় একটি গেট স্থাপন করে গেইটম্যান নিয়োগের প্রস্তাব ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাবটি অনুমোদন হলেই এই লেভেল ক্রসিং এলাকায় গেইট স্থাপন করে গেইটম্যান নিয়োগ দেয়া হবে।