শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজার-৩ আসনে কে হচ্ছেন প্রার্থী ?



Pic--60
মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :
সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীর মৃত্যু শোক জেলায় না কাটলেও শুন্য আসনে কে প্রার্থী হবেন এমন জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। মর্যাদাপুর্ণ মৌলভীবাজার-৩ আসনে ২০০৮ সালে জাতীয় নির্বাচনে সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম.সাইফুর রহমান এর সাথে প্রতিদ্বন্ধীতায় জয়ী বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসিন আলী আওয়ামীলীগ শাসনামলে জেলায় প্রথম পূর্ণমন্ত্রীর মর্যাদা পান।
শুন্য আসনে প্রার্থী হতে আওয়ামীলীগের অনেকেই জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। এ নিয়ে মাঠ পর্যায়ে চলছে জোর আলোচনা। উপনির্বাচন কেন্দ্রিক মৌলভীবাজারের রাজনৈতিক অঙ্গন ও সাধারণ মানুষের মাঝে প্রার্থী যাচাই বাচাই নিয়ে চলছে নানা পর্যালোচনা। প্রায় ডজনখানেক প্রার্থীরা বিভিন্ন ভাবে প্রচার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন।
এদিকে সাবেক সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীর স্বপ্ন পুরণ ও জনকল্যাণে মানুষের পাশে দাড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করে তাঁর ছোট মেয়ে সৈয়দা সাবরিনা শারমিন ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেওয়ায় নতুন জল্পনা কল্পনার সৃষ্টি করেছে।
কর্মী সাধারণের আলোচনায় সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় বিশেষভাবে প্রচারিত হচ্ছে প্রয়াত মন্ত্রীর সহধর্মীনি সৈয়দা সায়রা মহসিন ও তার মেয়ে সৈয়দা সানজিদা শারমিনের নাম।
এছাড়া সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন, জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমান, জেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ, জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেন, জেলা যুবলীগ সভাপতি ফজলুর রহমান. পুলিশের সাবেক এআইজি সৈয়দ বজলুল করীম যুক্তরাজ্য আ’লীগ সহ সভাপতি এম এ রহিম শহীদ (সিআইপি) ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত পুরকায়স্থ, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ কাজী খলিকুজ্জমান, সাবেক রাষ্ট্রদূত মৌলভীবাজারের কৃতি সন্তান গিয়াস উদ্দিন মনির, সাবেক মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য ডাকসুর ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদের নাম শুনা যাচ্ছে।
সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী বিজয়ী হয়ে আ’লীগের হারানো আসন পুনরুদ্ধার করেছিলেন। এর আগে এ আসন থেকে ৪ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী এম.সাইফুর রহমান। পারিবারিক ঐতিহ্যের কারনে সাবেক সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর স্ত্রী সৈয়দা সায়রা মহসিনকে মনোনীত করলে তৃণমূলের কর্মীদের মাঝে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে আসবে বলে জানালেন জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুর রহমান বাবুল। জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ কামাল হোসেন বলেন আমি মানুষের কল্যানে রাজনীতি করি।
তৃণমূল ও দল যাকে মনোনিত করবে তিনি দলের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিবেন। আমি আশাবাদী তৃণমূল ও আমার দলের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে দেশ গড়ার আন্দোলনে শরীক করবেন।
দলীয়ভাবে যাকে মনোনিত করা হবে তাকে সমর্থন করতে হবে। তবে যোগ্য ও ত্যাগী নেতা প্রয়োজন।