বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

কমলগঞ্জে গুলিবিদ্ধ কাঠ পাচারকারীর মৃত্যু



কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ।।
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রাজকান্দি বন রেঞ্জের সংরক্ষিত বনাঞ্চল থেকে কাঠ পাচারকালে বনকর্মীদের গুলিতে আহত অবস্থায় কাঠ পাচারীকারী বাছন আলী (১৫) রোববার সকাল ৯টায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এ ঘটনায় আরও ৫ কাঠ পাচারকারী আহত হয়েছেন। শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫ টায় কুরমা বনবিটের বাঘাছড়া এলাকায় চোরাই কাঠ পাচার প্রতিরোধকালে এ ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার ভোর রাতে আদমপুর বন বিটের বাঘাছড়া বন ক্যাম্পের আওতাধীন সংরক্ষিত বন থেকে সেগুন কাঠ কেটে রাখে একদল গাছচোরচক্র। শনিবার সকাল ১০টার দিকে কেটে রাখা গাছের খন্ডাংশগুলো পাচারকালে বনকর্মীরা পাচারকারীদের ধাওয়া করে। এ সময় রাজকান্দি এলাকার নছির আলী (২২), আমির আলী (২৪), বাছন আলী (১৫), আজির উদ্দিন (২৯), হালিম মিয়া (২৪) ও সুন্দর মিয়ার (৩৫) নেতৃত্বে কাঠ পাচারকারীরা বন কর্মীদের উপর হামলার চেষ্টা করলে বনকর্মীরা আত্মরক্ষার্থে এক রাউন্ড এক রাউন্ড গুলি (ছিটা গুলি) ছুড়ে। এতে হামলার নেতৃত্বকারী বাছন আলী, আমির আলী, নছির আলী, আজির উদ্দিন, হালিম মিয়া ও সুন্দর মিয়া গুলিবিদ্ধ হন। পরে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গিয়ে বাছন আলী সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাছন আলী মারা যায়। নিহত বাছন আলী রাজকান্দি গ্রামের বাসিন্দা ও ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড সদস্য মছদ্দর আলীর পুত্র।
কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) বদরুল হাসান ও ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলেমান মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তবে রাজকান্দি রেঞ্জ কর্মকর্তা মালেকুজ্জামান এ ঘটনা সম্পর্কে কিছু জানেন না জানিয়ে বলেন, তিনি দু’দিন যাবত অসুস্থ আছেন।
ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড সদস্য মছদ্দর আলী বলেন, নিহত বাছন আলী কাঠ পাচারের সাথে কোনভাবেই জড়িত নয়। সে ঢাকায় একটি কেরকারী কোম্পানীতে চাকুরী করত। ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাড়িতে এসেছিল। এরপরও কেন বনকর্মীরা তাকে গুলি করে হত্যা করলো? তিনি এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন।
কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. এনামুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এখন পর্যন্ত থানায় কোন লিখিত অভিযোগ আসেনি। নিহত বাছন আলীর লাশ সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত করা হচ্ছে। তবে পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখছে।