রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

কমলগঞ্জে মাগুরছড়া ট্রাজেডির ১৮তম বার্ষিকী দিবস পালিত ।। প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান



1
॥ কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
জাতীয় সম্পদ রক্ষা ও মাগুরছড়া গ্যাস বিপর্যয়ে ক্ষয়ক্ষতির আদায়, ক্ষয়ক্ষতির তালিকা প্রকাশসহ ঘরে ঘরে গ্যাস পৌঁছে দেয়ার দাবীতে ১৪ জুন রবিবার দুপুরে কমলগঞ্জের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সম্মুখে কমলগঞ্জ উন্নয়ন পরিষদ, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টিসহ বিভিন্ন সংগঠন এর উদ্যোগে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
2
মানববন্ধনে একাত্মা পোষণ করেন কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নেতৃবৃন্দ। পরে কমলগঞ্জ উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি এম, এ, ওয়াহিদ রুলু এর সভাপতিত্বে ও উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী কমলগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথের উপস্থাপনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সাংবাদিক যুক্তরাজ্য প্রবাসী ইসহাক কাজল, উন্নয়ন চিন্তক গবেষক আহমদ সিরাজ, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি কবি সাইয়্যিদ ফখরুল, কমলগঞ্জ সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক মো: সানোয়ার হোসেন, সাংবাদিক মো: শাহীন আহমেদ, কমরেড আফরোজ আহমদ প্রমুখ।
11169483_10207498110798698_2628079805921042565_n
সমাবেশ শেষে কমলগঞ্জ উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে মাগুরছড়া গ্যাস বিষ্ফোরণে ক্ষয়ক্ষতির তালিকা জনসম্মুখে প্রকাশ, ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ প্রদান ও কমলগঞ্জের ঘরে ঘরে গ্যাস সংযোগের দাবীতে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞার মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালের ১৪ জুন মধ্যরাতে ১টা ৪৫ মিনিটে মাগুরছড়া গ্যাসকূপে বিস্ফোরণের প্রচন্ড শব্দে কেঁপে ওঠে ছিল গোটা কমলগঞ্জ। আগুনের লেলিহান শিখায় লাল হয়ে উঠেছিল মৌলভীবাজার জেলার সুনীল আকাশ। ভীত-সন্ত্রস্থ লোকজন ঘরের মালামাল রেখে প্রাণভয়ে ছুটে ছিল দিগি¦দিক। প্রায় ৫০০ ফুট উচ্চতায় লাফিয়ে উঠা আগুনের লেলিহান শিখায় লন্ডভন্ড করে দিয়েছিল বিস্তীর্ণ এলাকা। আগুনের শিখায় গ্যাসফিল্ড সংলগ্ন লাউয়াছড়া রিজার্ভ ফরেষ্ট, মাগুরছড়া খাসিয়াপুঞ্জি, জীববৈচিত্র্য, বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন, ফুলবাড়ী চা বাগান, সিলেট-ঢাকা ও সিলেট- চট্টগ্রাম রেলপথ এবং কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়।  দেড় যুগেও জনসম্মুখে ক্ষয়ক্ষতির তালিকা প্রকাশ হয়নি, আদায় হয়নি ক্ষতিপূরণ। পরিবেশ সংরক্ষণবাদীদের তথ্য মতে, ৬৩ প্রজাতির পশু-পাখির বিনাশ সাধন হয়। সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেলযোগাযোগ ১৬৩ দিন বন্ধ থাকে। মোট ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ধরা হয়েছিল ১৫ হাজার কোটি টাকা।  মার্কিন অক্সিডেন্টাল ক্ষয়ক্ষতির আংশিক পরিশোধ করলেও বন বিভাগ কোন ক্ষতিপুরণ পায়নি।