বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জের দুইবোনের লাশ কুলাউড়ায় উদ্ধার ॥ মায়ের দাবী পরিকল্পিত হত্যাকান্ড



কমলকুঁড়ি রিপোর্ট
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার দুই বোনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে কুলাউড়ার ওমান প্রবাসীর পুকুর থেকে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে নয়টায় তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের ওমান প্রবাসী জয়নাল মিয়ার বাড়ীতে গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের আদকানী গ্রামের দুই বোন মৃত আকবর আলীর মেয়ে আরিজা বেগম (১৮) এবং তার ছোট বোন ছকিনা বেগম (১৬) উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নে জয়নাল মিয়ার মেয়ের বাড়ীতে কাজ করতেন। সোমবার সন্ধ্যা থেকে তারা নিখোঁজ ছিলেন। দুপুরের পর থেকে তাদের খুঁজে না পেয়ে এক পর্যায়ে কুলাউড়ার ভাটেরা ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের প্রবাসী জয়নাল মিয়ার বাড়ীর পুকুর থেকে স্থানীয়রা তাদের মৃতদেহ দেখে কুলাউড়া থানা পুলিশকে অবহিত করেন। রাত ১২টায় কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জয়নাল মিয়ার বাড়ী থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে। আরিজা ও ছকিনার মা পিয়ারুন বেগম বলেন, আমার মেয়েদের পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। আমাকে আমার মেয়েদের না দেখিয়ে তড়িঘড়ি করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেয়া হয়। ভাটেরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজ মিয়া জানান, প্রবাসী জয়নাল মিয়ার প্রতিবেশী দলা মিয়ার সহযোগীতায় মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।
আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূইয়া এ প্রতিনিধিকে জানান, তিনি প্রথমে তার ইউনিয়নের সদস্য সুরত মিয়ার কাছ থেকে খবর পান। একই সাথে দুই বোনের মৃত্যু এবং পুকুর থেকে উদ্ধার রহস্যজনক বলে মনে হচ্ছে। তিনি ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তসাপেক্ষ অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার ও সুষ্ট বিচার দাবী করেন।
কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মতিউর রহমান মৃতদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ‘দুই বোন সাঁতার না জানায় পুকুরে ডুবে মারা যেতে পারে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেউ। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।’ এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।