বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিতর্কিত শিক্ষা কর্মকর্তাকে- কমলগঞ্জে যোগদানে আপত্তি জানিয়ে সরকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের ৫ম দিনের মত অবস্থান ধর্মঘট



Pic---Kamalgonj[1]
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও সিলেটীদের নিয়ে কঠুক্তি করে বক্তব্য প্রদানকারী বিতর্কিত উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আনোয়ারুল ইসলামকে কমলগঞ্জে যোগদানে আপত্তি জানিয়ে ৫ম দিনের মত রোববার কমলগঞ্জ উপজেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে শিক্ষকরা অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করে। এ সময় কমলগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করা হয়। রোববার দুপুর ১টায় অনুষ্ঠিত অবস্থান ধর্মঘটে উপজেলার বিভিন্ন স্কুলের প্রায় ২শত শিক্ষক-শিক্ষিকা যোগদান করেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অসমঞ্জু প্রসাদ রায় চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক ফয়সল আল কয়েছ চৌধুরী বলেন, বালাগঞ্জের সাবেক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: আনোয়ারুল ইসলাম কয়েকটি কারণে বিতর্কিত হয়েছেন। শিক্ষক আন্দোলনের মুখে তিনি বালাগঞ্জ উপজেলায় থাকতে না পারলেও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর দ্রুত তাকে মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় বদলী করে। সেখানে তিনি যোগদান করে আবারও শিক্ষক আন্দোলনে ঠিকতে না পারলেও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২২ ফেব্রুয়ারি স্মারক নং প্রাশিঅ/৮টি/০৯টি/প্রাই/(প্র.শা)/২০১৪/৫৭ মূলে তাকে (আনোয়ারুলকে) কমলগঞ্জে বদলী করে ২৩ ফেব্রুয়ারির ভিতর যোগদানের নির্দেশ দেয়। এ খবরে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা আন্দোলন শুরু করে।
গত এক সপ্তাহে মৌলভীবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস বা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর পরবর্তী কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি বলে রোববারও কমলগঞ্জে অবস্থান ঘর্মঘটন কর্মসূচি পালন করা হয়।
কমলগঞ্জ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা মো: ইফতেখার হোসেন ভূঁঞা, কমলগঞ্জে সরকারী প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলনের কথা স্বীকার করে বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর তাকে যে নির্দেশনা দিবেন তা তিনি মেনে নিতে হবে।