শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতি /কৃষি কর্মকর্তার বাড়িতে বন্দুকধারীদের দুধর্ষ ডাকাতি



কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
কমলগঞ্জ উপজেলায় সম্প্রতি সময়ে চরম আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি দেখা দিয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটায় পৌর এলাকার রামপাশা গ্রামে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার বাড়িতে মুখোশপরা বন্দুকধারী ডাকাতরা দুধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত করেছে। শিক্ষিকাসহ ঘরের ৪ জনকে বেঁধে ডাকাতরা ৮ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে। এছাড়াও প্রতিনিয়ত ট্রান্সফরমার চুরি ও মাদকসেবীদের যন্ত্রনায় অতিষ্ট হয়ে উঠেছেন গোটা উপজেলার মানুষ।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ পৌর এলাকার রামপাশা গ্রামের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা বিজয় পালের বাড়িতে মুখোশপরা ১০/১২ জনের সংঘবদ্ধ ডাকাত দল বন্দুক, চায়নিজ কুড়াল ও রামদা নিয়ে বারান্দার কেসি গেইট ও দরজার সিটকারী ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। বিজয় পাল ঢাকায় ট্রেনিং এ থাকায় ঘরে শিক্ষিকা শিখা রানী পাল, তাঁর ছেলে হৃদয় পাল, ভাতিজা নিশাত পাল চৌধুরী ও ভাশুর অমলেন্দু পাল চৌধুরীকে বেঁধে রাখে। শিখা রানী পাল বলেন, ডাকাতরা ঘরে প্রবেশ করে তাদেরকে বেঁধে জিনিসপত্র তছনছ করে ১৫ ভরি স্বর্নালঙ্কার, নগদ ৬০ হাজার টাকা, ৩টি মোবাইল ফোন, ১টা ক্যামেরা, ১টা চার্জার লাইট, ১টা টর্চ লাইট, ১টা বলিচ্ছেদ, ১টা দা ও মুল্যবান জিনিসপত্রসহ সহ প্রায় ৮ লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় ডাকাতরা পাশের বাড়িতে প্রবেশ করবে। তিনি আরও বলেন, তাহার স্বামী ট্রেনিং থেকে আসার পর থানায় অভিযোগ দেয়া হবে। খবর পেয়ে ভোরে কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) বদরুল ইসলাম সহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এদিকে কমলগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে ঘন ঘন ট্রান্সফরমার চুরির ঘটনায় এবং শমশেরনগর চাতলাপুর সড়কের কানিহাটি চা বাগান সহ বিভিন্ন স্পটে মাদক সেবী ও মাদক ব্যবসায়ীদের যন্ত্রনায় চা শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, এটি ডাকাতি নয়। মামলা হলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। মৌলভীবাজারের এএসপি (সার্কেল) মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, তিনি বিষয়টি জানেন না।