বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উচ্চ শিক্ষার্থে কমলগঞ্জ ইউএনও’র যুক্তরাজ্য গমন উপলক্ষে মধুচাষী, বাঁশ-বেত ও শব্দকর সমাজের উদ্যোগে শুভেচ্ছা বিনিময় ও ঋণ বিতরণ



Pic--Kamalgonj U.N.O
কমলকুঁড়ি রিপোর্ট ॥
উচ্চ শিক্ষার্থে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞার যুক্তরাজ্য গমন উপলক্ষে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা মধুচাষী, বাঁশ-বেত ও শব্দকর সমাজ উন্নয়ন পরিষদ এর উদ্যোগে আনুষ্ঠানিকভাবে ফুলেল অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা বিনিময় ও ৮ জন নারী উদোক্তাকে ১ লক্ষ ৭০ হাজার ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । মঙ্গলবার (১সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Pic--Kamalgonj U.N.O--03
কমলগঞ্জ উপজেলা ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প উদ্যোক্তা উন্নয়ন পরিষদের উপদেষ্টা লেখক-গবেষক আহমদ সিরাজের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ গণ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান মিঞা, উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মোহাম্মদ হোসেন কুটি, সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক সঞ্জয় কুমার দেব। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক আব্দুল হান্নান চিনু, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি এম, এ, ওয়াহিদ রুলু, সাপ্তাহিক কমলগঞ্জ সংবাদ সম্পাদক মো. সানোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ দলিত অধিকার আন্দোলনের সভাপতি সুনীল কুমার মৃধা, আং নুর-নুরজাহান চৌধুরী কল্যাণ ট্রাষ্টের সমন্বয়কারী মিজানুর রহমান মিষ্টার, উপজেলা মধুচাষী সমিতির সভাপতি আলতাফ মাহমুদ বাবুল, শব্দকর সমাজ উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি প্রতাপ শব্দকর, সাধারণ সম্পাদক উপন্দ্রে শব্দকর, নারী উদ্যেক্তা সোমা বিশ্বাস, কলেজ ছাত্রী মিতা নুর নাহার, নাহিদা আক্তার সুমনা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা-কে মধুচাষী, বাঁশ-বেত ও শব্দকর সমাজ উন্নয়ন পরিষদ এর পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া, মানপত্র ও উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কমলগঞ্জের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞার অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি তার কর্মের মাধ্যমে চিরজাগরুক হয়ে থাকবেন কমলগঞ্জবাসীর হৃদয়ে।
সংবর্ধিত ব্যক্তি ইউএনও মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা বলেন, এই অনুষ্ঠানটি আমার কাছে একটি ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠান হিসাবে থাকবে। আমি মানুষের জন্য যতটুকু করার তা করতে পারছি বলে মনে হয় না। তারপরও এলাকার এই গরীব মানুষরা বিশেষত শব্দকর, বাঁশ বেত, মধুচাষী উদ্দ্যোগতারা এখানে সমবেত হয়ে যে শুভেচ্ছা যে ভালবাসা দেখিয়েছেন তা এক বিরাট পাওনা।
অনুষ্ঠানে প্রায় দুই শতাধিক নরনারী উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখার উদ্যোগে ৮ জন নারী উদোক্তা বাঁশ-বেত শিল্পী, মধুচাষী ও তাঁতীর মধ্যে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়।