শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আদমপুরে মণিপুরী ভাষা উৎসব পালিত



Pic--Kamalgonj--02

আর. কে. সোমেন ::

বাংলাদেশ মণিপুরী শিক্ষার্থীদের মধ্যে মণিপুরী ভাষা,
লিপি, সাহিত্য ও ইতিহাস সম্পর্কে সম্যক ধারণা সৃষ্টির লক্ষে বাংলাদেশ
মণিপুরী সাহিত্য সংসদ কমলগঞ্জ শাখার আয়োজনে  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ
উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও রসিদউদ্দিন হাই স্কুলে অনুষ্ঠিত
হয়েছে মণিপুরী ভাষা উৎসব।  শুক্রুবার (২৪ এপ্রিল) সকাল ৯.৩০ মিনিটে পতাকা উত্তোলন
ও জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে উৎসবটির উদ্বোধন করেন তেতইগাঁও রসিদউদ্দিন হাই
স্কুল এর প্রধান শিক্ষক মোঃ আবদুল মতিন। পরে অনুষ্ঠিত হয় র‌্যালী।
র‌্যালীটি আদমপুর বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে বিদ্যালয়
হলরুমে অনুষ্ঠিত হয় ভাষা প্রতিযোগীতা। পরে বামসাস কমলগঞ্জ শাখার সভাপতি
কবি খোইরোম ইন্দ্রজিত এর সভাপতিত্বে এবং ছাত্রী হিরামনী সিন্হার
সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আদমপুর ইউপি
চেয়ারম্যান মোঃ সাব্বির আহমেদ ভূঁইয়া ও প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত
ছিলেন বাংলাদেশ মণিপুরি সাহিত্য সংসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কবি এ
কে শেরাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে  বক্তব্য রাখেন শিক্ষক সাজ্জাদুল হক স্বপন
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি
সাংবাদিক প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক  আর. কে. সোমেন ও
সাংবাদিক সুমন আহমেদ।

উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন বামসাস কমলগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক সানাতন হামোম,
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাব্বির আহমেদ
ভূঁইয়া বলেন মণিপুরী ভাষার সম্মান রক্ষার্থে ছাত্র/ছাত্রীদের হাল ধরতে
হবে। লেখাপড়ার মাধ্যমে বিশ্বের দরবারে নিজেদের অবস্থান প্রতিষ্ঠিত করতে
হবে। এই ভাষাকে রক্ষা করতে  আমাদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করে যেতে হবে। এ
অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে তরুণ সমাজকে জ্ঞানদীপ্ত হতে হবে।  এক্ষেত্রে
অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে সকল সদস্যকে এগিয়ে আসতে হবে। চেয়ারম্যান আরো
বলেন আগামী ১৫ই মে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য বামসাস এর
৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি অনুষ্ঠানে কমলগঞ্জের ছাত্র ছাত্রীদের যাতায়াতের
জন্য একটি বাসসহ দশ হাজার টাকা অনুদানের ঘোষনা করেন।

আলোচনা সভা শেষে অতিথিরা ভাষা প্রতিযোগিতার ভালো ফলাফল অর্জনকারীদের নগদ অর্থ ও পুরস্কার বিতরণ করেন।

উল্লেখ্য যে, মণিপুরীরা বাংলাদেশের একটি ক্ষুদ্র জাতিসত্তা।
সংখ্যাস্বল্পতা ও নানা প্রতিকূলতার কারণে বাংলাদেশে মণিপুরী ভাষা আজ
হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কার মুখে দাঁড়িয়ে আছে। এমনি প্রেক্ষাপটে মণিপুরী
ভাষাকে বাঁচিয়ে প্রয়াস হিসেবে এই প্রজম্মের মণিপুরী শিক্ষার্থীদের
মধ্যে মাতৃভাষাকে জনপ্রিয় করে তোলা এবং এর পঠন ও লিখনের অভ্যেস গড়ো
তোলার লক্ষে ২০০৮ সাল থেকে নিয়মিত ভাবে মণিপুরী ভাষা উৎসব আয়োজন করে
আসছে।